নাটোরের সিংড়ায় চলাচলের রাস্তায় বেড়া দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে ৭টি পরিবার। ছবি: মো. আবু জাফর সিদ্দিকী

মো. আবু জাফর সিদ্দিকী (বিশেষ প্রতিবেদক): নাটোরের সিংড়ায় চলাচলের রাস্তায় বেড়া দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে ৭টি পরিবার। শুক্রবার দুপুরে উপজেলার চৌগ্রাম ইউনিয়নের রথবাড়ি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। চলাচলের বিকল্প রাস্তা না থাকায় জমির মধ্যে দিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে অবরুদ্ধ ৭ পরিবারের সদস্যদের।

ভূক্তভোগী ইসহাক আলী জানান, আমাদের প্রতিবেশী আকরাম হোসেনের গরু সবসময় আমাদের চলাচলের রাস্তায় বাধা থাকে। এতে চলাচলে কষ্ট হলেও কখনো বলিনি। শুক্রবার দুপুরে আমার ভাতিজা হাসান আলী জুমার নামাজে যাওয়ার সময় প্রতিবেশী আকরাম হোসেনের মুরগি তার পায়ে আঘাত করলে সে বিব্রতবোধ করে নামাজে যায়, নামাজ শেষে এসে দেখে খাস জায়গায় ও আকরাম হোসেনের ব্যক্তিগত সীমানায় বেড়া। এতে বন্ধ হয়ে যায় চলাচলের রাস্তা। তখন সে বেড়া দেয়ার কারণ জানতে চাইলে আকরাম হোসেন ও তার ছেলে নাজমুল ইসলাম লাঠিসোটা নিয়ে তাকে তাড়া করে। এ সময় আকরাম হোসেনের বড় ভাই আমিনুর রহমান আমাকে এবং আমার পরিবারের সদস্যদের মারার হুকুম দেয়।

ভূক্তভোগী ইসহাক আলী আরো জানান, শাহজাহান, ফেরদৌস, ইদ্রিস, হাসান, ফিরোজাসহ আমাদের ৭ পরিবারের চলাচলের রাস্তায় বেড়া দেয়ায় খুবই সমস্যায় পড়েছি।

অভিযুক্ত আকরাম হোসেনের মুঠোফোন বন্ধ থাকায় তার পুত্র নাজমুল ইসলাম বলেন, আমরা আমাদের জায়গায় বেড়া দিয়েছি। তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে হাসানকে আমরা তাড়া করলে সেও ধারালো অস্ত্র দিয়ে আমাদের মারার হুমকি দেয়।

চৌগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহেদুল ইসলাম ভোলা জানান, বিষয়টি জানিনা, তবে আমি খোঁজ নিয়ে সমাধান করার চেষ্টা করছি।

সিংড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নূর-এ-আলম সিদ্দিকী বিপিএম জানান, বিষয়টি সম্পর্কে আমি অবগত নয়। লিখিত অভিযোগ পেলে তাৎক্ষণাত ব্যবস্থা নেয়া হবে।