শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার নাজিরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শওকত রানা লাবুর বিরুদ্ধে দায়ের করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে বিক্ষোভ মিছিল-সমাবেশ করেছে আওয়ামী লীগ। ছবি: সংগৃহীত

নিউজ ডেস্ক: নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার নাজিরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শওকত রানা লাবুর বিরুদ্ধে দায়ের করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে বিক্ষোভ মিছিল-সমাবেশ করেছে আওয়ামী লীগ।

শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে নাজিরপুর ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আলহাজ্ব মো. সাখাওয়াত হোসেন মোল্লা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন আ.লীগ নেতা আব্দুর রাজ্জাক, নজরুল ইসলাম, ইউপি সদস্য মিজানুর রহমান উজ্জল, শরিফুল ইসলাম শরিফ, অধ্যক্ষ আমিনুল ইসলাম, প্রধান শিক্ষক ফরিদ উদ্দিন মন্ডল প্রমুখ।

সমাবেশে ইউপি সদস্য মিজানুর রহামন উজ্জল বলেন, চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে দায়ের করা চাঁদাবাজির মামলাটি উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি), সমাজসেবা ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা তদন্ত করে সতত্যা পাননি। আসন্ন ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষরা বিভিন্নভাবে মিথ্যা মামলায় জরাচ্ছে। যাতে লাবু নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন বঞ্চিত হন।

এ সময় চেয়ারম্যান শওকত রানা লাবু অভিযোগ করেন, রাজনৈতিক প্রতিপক্ষরা ফায়দা লুটতে দিনহীন এক ভ্যান চালককে দিয়ে তার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করিয়েছেন। সেই মামলায় তাকে হাজতবাসও করতে হয়েছে। অথচ তদন্ত করে মামলার সত্যতা প্রমাণিত হয়নি।

তিনি আরো অভিযোগ করেন, তিনি নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও নাটোর-৪ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল কুদ্দুসের অনুসারী হওয়ায় এমপি বিরোধীরা তাকেসহ এমপিকে জড়িয়ে বিভিন্নভাবে মিথ্যাচার, হামলা-মামলা করে যাচ্ছে। তিনি এসব মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান।

এদিকে মামলা নথি সূত্রে জানা গেছে, আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর বরাদ্দকৃত আধাপাকা টিনশেড ঘর প্রদানের জন্য অর্থ আদায়ের অভিযোগ এনে নাজিরপুরের ভ্যানচালক জালাল উদ্দিন সম্প্রতি চেয়ারম্যানকে অভিযুক্ত করে নাটোরের আদালতে চাঁদাবাজি মামলা দায়ের করেছিলেন। সেই মামলায় চেয়ারম্যান লাবু সাতদিন হাজত বাস করে ১৪ ফেব্রুয়ারি জামিনে মুক্তি পেয়েছেন।